মেনু নির্বাচন করুন
রানী ভবানীর ঐতিহ্য মন্ডিত নাটোরে ১৯১৮ সালে ৯৪ জন বন্দী ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন ১.১৫ একর ভূমির উপর নাটোর উপ-কারাগার প্রতিষ্ঠিত হয়। সময়ের বিবর্তনে ১৯৯৬ সালে উপ-কারাগারটিকে জেলা কারাগারে উন্নিত করা হয় কিন্তু বন্দী আধিক্কতার কারণে ১৯৯৭ সালে হরিশপুর ইউনিয়নে ৭.৫০ একর ভূমির উপর ২০০ জন বন্দী  ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন নবনির্মিত জেলা কারাগারের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়। ২০১১ সালে কারাগারের নির্মান কাজ শেষে গত ১৭ সেপ্টেম্বর/১১ খ্রিঃ হতে নব নির্মিত এই কারাগারের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।                                

সাধারণ তথ্য

সাংগঠনিক কাঠামো

জনশক্তি

ছবিনামপদবিফোনমোবাইলইমেইল
ফারুক আহমেদ জেল সুপার০৭৭১৬১০৮৫(অফিস)01715-587767jailsupernatore@yahoo.com
মোঃ আমান উল্লাহ জেলার০৭৭১৬৬৮৭৭(অফিস)০১৭১৭-২৯২০৫১
মোঃ আব্দুর রব মিয়াডেপুটি জেলার0771-66877(off)017-56974940abdurrab15@yahoo.com
ডাঃ আবুল কালাম আজাদকারা সহকারী সার্জনdr.natorejail@yahoo.com

গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পসমূহ

 

নাটোর জেলা কারাগারে বর্তমানে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

কর্মচারীবৃন্দ

ছবিনামপদবি
মোঃ বশির উদ্দিনফার্মাসিস্ট
মোঃ শহিদুল ইসলামকারা সহকারী
মোঃ আনসারুল ইসলাম প্রধান কারারক্ষী নং- ৩১৮৭৭
মোঃ ফরিদ উদ্দিন প্রধান কারারক্ষী নং- ৩১২৫৩
মোঃ গোলাম মোস্তফা প্রধান কারারক্ষী নং- ৩১১৪২
মোঃ মতিউর রহমানপ্রধান কারারক্ষী নং-০৩৪৬৫
মোঃ ইসরাইল হোসেনকারারক্ষী নং- ৩২২২৪
মোঃ কাজল হোসেনকারারক্ষী নং- ৩১৯৪৩
মোঃ জনি মিয়া কারারক্ষী নং- ৩২২২৩
মোঃ মাসুদ রানা কারারক্ষী নং- ৩২২২০
মোঃ আব্দুল মান্নান কারারক্ষী নং- ৩১৬২২
মোঃ রোকনুজ্জামান কারারক্ষী নং- ০৩৯৩৯
মোঃ রেজাউল করিম কারারক্ষী নং- ৩১২৬৮
মোঃ গোলাম রববানী কারারক্ষী নং- ৩২৩১৯
মোঃ শামসুল আলম কারারক্ষী নং- ৩১৮৯৮
মোঃ শাহিনুজ্জামান কারারক্ষী নং- ০৩৫২০
মোঃ আব্দুস সাত্তার কারারক্ষী নং- ০৩৫৩৫
মোঃ মকছেদ আলী কারারক্ষী নং- ০৩৫৫৩
মোঃ মাহবুবুল হক কারারক্ষী নং- ৩২৩৫৪
শ্রী দিলীপ কুমার কারারক্ষী নং- ৩১১২৭
মোঃ মহফিল নবাব কারারক্ষী নং- ০৩৪৫৬
মোঃ আবুল কালাম আজাদ কারারক্ষী নং- ৩১৬৪০
মোঃ আফজাল হোসেন কারারক্ষী নং- ০৩৪০৬
মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক কারারক্ষী নং- ৩১৪৯৪
শ্রী শ্যামল কুমার কারারক্ষী নং- ৩১৮৯০
মোঃ ফইম উদ্দিন কারারক্ষী নং- ০৩৫৯৩
মোঃ শফিকুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ৩১০০৬
মোঃ চাঁদ আলী কারারক্ষী নং- ০৩৯৮৪
মোঃ আব্দুস সালাম কারারক্ষী নং- ৩২২৪৫
মোঃ তহুরুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ৩২২৪৬
মোঃ মাহবুব আলম কারারক্ষী নং-৩২২৪৭
মোঃ সাইদুর রহমান কারারক্ষী নং- ৩১৬৩৬
মোঃ আব্দুর রাজ্জাক কারারক্ষী নং- ৩১৮১৪
মোঃ আহম্মদ উল্যা কারারক্ষী নং- ৩১৭১৪
মোঃ আব্দুর রহিম কারারক্ষী নং- ৩২৩৬৭
মোঃ রাজু আহম্মেদ কারারক্ষী নং- ৩২১৫৯
মোঃ আব্দুর রশিদ কারারক্ষী নং-৩১৭৬৫
মোঃ মামুনুর রশিদ কারারক্ষী নং- ৩১৪৯৭
মোঃ কলিম উদ্দিন কারারক্ষী নং- ০৩৯২৬
মোঃ রেজাউল করিম কারারক্ষী নং- ৩১৫৭৬
মোঃ শফিকুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ৩১২৫৮
মোঃ শাহজাহান আলী কারারক্ষী নং- ৩১৬১৮
মোঃ আলোক হোসেন কারারক্ষী নং-৩২৩৩০
মোঃ আব্দুল হাকিমকারারক্ষী নং- ৩১৯৭০
মোঃ নজরুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ০৩৪৬৮
মোঃ আনোয়ার হোসেন কারারক্ষী নং- ৩১৩৬৪
মোঃ আশরাফুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ০৩৩৮০
মোঃ রেজাউল করিম কারারক্ষী নং- ৩২০৫৯
মোঃ তৌহিদুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ৩২০৪৫
মোঃ লুৎফর রহমানকারারক্ষী নং- ৩১১৬০
মোঃ দুলাল হোসেন কারারক্ষী নং-৩১৫৫৫
মোঃ জহুরুল ইসলাম কারারক্ষী নং- ৩১৫১৫
মোছাঃ নাজমা খাতুন মহিলা কারারক্ষী নং- ৩১৩০৫
মোছাঃ মমতাজ বেগম মহিলা কারারক্ষী নং- ৩১১৯১
মোছাঃ মেহেনাজ পারভীন মহিলা কারারক্ষী নং- ৩১৭১৮
মোছাঃ শাহিন সুলতানামহিলা কারারক্ষী নং- ১২৫২০
মোছাঃ মারুফা খাতুন মহিলা কারারক্ষি

যোগাযোগ

জেল সুপার,

নাটোর জেলা কারাগার ।

ফোনঃ ০৭৭১-৬১০৮৫ ফ্যাক্সঃ ০৭৭১-৬১০৮৫ ইমেইলঃ jailsupernatore@yahoo.com

 

জেলার,

নাটোর জেলা কারাগার।

ফোন- ০৭৭১-৬১৮৭৭  ইমেইল : asadur_rahman_asad@yahoo.com

মোবাইল : ০১৯৩০৪৬৯৯৭৮, ০১৭৩৩০৬৪০৩৯।

সিটিজেন চার্টার

 

                                                                      সিটিজেন চার্টার

                                                                                                                                                                                                                     

                                   "রাখিব নিরাপদ, দেখাব আলোর পথ" বাংলাদেশ কারা বিভাগ এই ভিশনকে সামনে রেখে কারাগারগুলো সংশোধনাগার ও সেবামুলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে বদ্ধপরিকর। জনস্বার্থ ও জনকল্যাণে কারাগারের যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালিত হয়ঃ

 

১. আদালত হতে আগত বন্দীদের জন্যঃ


ক. প্রত্যেক দিন আদালত হতে আগত বন্দীদের শ্রেনী বিন্যাস করতঃ যথাযথ আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়।
খ. অসুস্থ বন্দীদের তাৎক্ষণিভাবে যথাযথ চিকিৎসা প্রদানের নিমিত্তে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
গ. নির্ধারিত তারিখে বিচারাধীন বন্দীদেরকে সংশ্লিষ্ট আদালতে হাজিরা নিশ্চিত করা হয়।
ঘ. কোন বন্দীর হাজিরার তারিখ নির্দিষ্ট না থাকলে আদালতের সাথে যোগাযোগ করতঃ হাজিরার তারিখ সংগ্রহ পূর্বক আদালতে হাজিরার ব্যবস্থা করা হয়।
ঙ. নবাগত বন্দীদের আদালত হতে আসার সময় তাদের সাথে রক্ষিত টাকা পয়সা ও মূল্যবান দ্রব্যাদি যথাযথ হেফাজতে রাখার ব্যবস্থা করা হয়।
চ. অসহায় অসচ্ছল বন্দীদের ন্যায় বিচার প্রাপ্তির লক্ষ্যে সরকারী কৌশলী নিয়োগের মাধ্যমে যথাযথ আইনগত সহায়তা প্রদান করা হয়।
ছ. দন্ডপ্রাপ্ত বন্দীদের সুবিচার প্রাপ্তিতে উচ্চ আদালতে আপিল দায়েরের ব্যাপারে তাদের আত্মীয়-স্বজনের সাথে যোগাযোগের লক্ষ্যে সহযোগিতা করা হয়।

 

২.বন্দীদের সাথে দেখা-সাক্ষাৎ সংক্রান্তঃ


ক. আত্নীয়-স্বজন হাজতী বন্দীদের সাথে ১৫ দিন অন্তর অন্তর একবার করে দেখা করা যাবে।
খ. কয়েদী বন্দীদের সাথে মাসে একবার দেখা করা যাবে।
গ. ডিটেন্যু ও নিরাপদ হেফাজতী বন্দীদের সাথে দেখা করতে হলে সংশ্লিষ্ট জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও আদালতের অনুমতি প্রয়োজন।
ঘ. দেখা সাক্ষাৎ সর্বোচ্চ ৩০ (ত্রিশ) মিনিটের মধ্যে শেষ করতে হবে এবং সর্বোচ্চ ৫(পাঁচ) জন একসাথে একজন বন্দীর সাথে দেখা করতে পারবেন।
ঙ. বন্দীদের সাখে দেখা করার জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা লেনদেন নিষিদ্ধ। কেউ টাকা দাবী করলে জেল সুপার/ জেলারকে জানাতে হবে।
চ. মোবাইল বা অন্য কোন নিষিদ্ধ দ্রব্য নিয়ে সাক্ষাত কক্ষে প্রবেশ করা যাবে না।
ছ. বন্দীদের সাথে সাক্ষত প্রার্থীদের দেখা সাক্ষাত প্রক্রিয়া দূনীতি মুক্ত করা হয়েছে।
জ. বন্দীদের সাথে তার কৌশলী দেখা সাক্ষাতের সুযোগ প্রদান করা হয়।
ঝ. বন্দীদের সাথে দেখা করার জন্য জেল সুপারের বরাবরে আবেদন করতে হবে। যারা আবেদনপত্র লিখতে সক্ষম নয় তাদের সহায়তা করার জন্য রিজার্ভ এ কর্তব্যরত কর্মচারীর স্লিপের মাধ্যমে দেখা করার সুযোগ পাবে।
ঞ. নিদিষ্ট সময় পূর্বে বা পরে দূর দূরান্ত থেকে আগত সাক্ষাত প্রার্থীদের সাথে বন্দীদের সাক্ষাতের জন্য সাধারনতঃ মানবিক দৃষ্টিকোন হতে অনুমতি প্রদান করা হয়।
ট. কারাগারে আটক বন্দী অথবা কারো সমন্ধে কোন তথ্য জানতে চাইলে কারাগারের ফটকের সামনে অবস্থিত রিজার্ভ গার্ডে কর্তব্যরত প্রধান কারারক্ষীর সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।
ঠ. সাক্ষাত প্রার্থীদের সহজ ও ন্যায্য মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রবাদী সরবরাহের লক্ষে প্রত্যেক কারাগারে ১(এক)টি করে ক্যান্টিন/দোকান চালু করা হয়েছে। আগত সাক্ষাত প্রার্থীরা নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদী ন্যায্য মূলে ক্রয় করে বন্দীদের সরবরাহ করতে পারেন। এতে একদিকে যেমন কারাগারে অবৈধ দ্রব্যাদির প্রবেশ নিয়ন্ত্রিত হবে অন্যদিকে সাক্ষাত প্রার্থীরা সহজলভ্য ও সঠিক জিনিস ক্রয় করতে পারবেন।
ড. সাক্ষাত প্রার্থীগণ কর্তৃক বন্দীদের জন্য দেওয়া মালামাল যথাযথভাবে বন্দীর নিকট পৌছানো নিশ্চিত করা হয়।

 

৩. বিশ্রামাগারের ব্যবস্থাঃ


ক. প্রত্যেক কারাগারে বন্দীদের সাথে আগত সাক্ষাত প্রার্থীদের জন্য বিশ্রামাগার রয়েছে।
খ. বিশ্রামাগারে পর্যাপ্ত বসার ব্যবস্থা, বৈদ্যুতিক পাখা, বিশুদ্ধ খাবার পানি ও টয়লেটের সুব্যবস্থা রয়েছে।
গ.অফিসে কোন প্রয়োজনীয় সংবাদ পৌছাতে হলে বাহির গেইটে অনুসন্ধানে যোগাযোগ করুন এবং কারারক্ষীর মাধ্যমে পৌছে দেওয়ার ব্যবস্থা আছে।

 

৪. পিসিতে টাকা জমাদান পদ্ধতিঃ

 

ক. কারাগারে আটক বন্দীদের ব্যক্তিগত তহবিলে (পিসি) অর্থ জমা রাখার প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।
খ কেউ কারাগারে আটক বন্দীদের পিসিতে টাকা জমা রাখতে চাইলে মানি অর্ডার করতে পারবেন।
গ. বন্দীর আত্নীয়-স্বজন সরাসরি তার পিসিতে অর্থ জমা দিতে পারবেন।
ঘ. রিজার্ভ গার্ডে কর্ত্যরত প্রধান কারারক্ষীর সহযোগীতায় এই অর্থ জমা দেওয়া যাবে। অর্থ জমাদানের ব্যাপারে কোন প্রকার বাড়তি ফি প্রদান করতে হয় না।

 

৫. ওকালতনামা স্বাক্ষর প্রসংগেঃ


ক. ওকালতনামা স্বাক্ষরের ব্যাপারে অবৈধ অর্থের লেনদেন রোধে প্রত্যেক কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে ওকালতনামা দাখিলের জন্য নির্ধারিত বক্স রহেছে।
খ. নির্ধারিত সময় অন্তর বাক্স খুলে ওকালতনামা স্বাক্ষিদের/বন্দীর কৌশলী/আত্মীদের নিকট হস্তান্তর করা হয়।
গ. ওকালতনামা বন্দীর স্বাক্ষরের জন্য কোন অর্থের প্রয়োজন হয় না। যদি কেউ এ ব্যাপারে কোন অর্থের দাবী করে তাহলে তাৎক্ষনিকভাবে বিষয়টি রির্জাভ গার্ডের কর্তব্যরত প্রধান কারারক্ষী অথবা সরাসরি জেল সুপার/জেলার এর সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

 

৬. জামিনে মুক্তি প্রসংগেঃ

 

ক. আদালত থেকে প্রাপ্ত মুক্তি/জামিন আদেশের প্রেক্ষিতে মুক্তিযোগ্য বন্দীদের তালিকা প্রধান ফটকের সামনে নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়, যাতে বাহিরে অপেক্ষমান আত্মীয়-স্বজন সহজে বন্দীর মুক্তির বিষয়টি জানতে পারেন।
খ. যে সব বন্দীর মুক্তির/জামিন আদেশে ভুল পরিলক্ষিত হয় তাদের নামের তালিকাও প্রধান ফটকের সামনে নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়,যাতে করে বন্দীর আত্মীয়-স্বজন অহেতুক দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা না করে চলে যেতে পারে।

 

৭. বন্দীদের সাথে আচরন প্রসঙ্গেঃ

 

ক. কারাগারে আটক বন্দীদের সাথে মানবিক আচরণ নিশ্চিত করা হয়।
খ. কারাগারে আটক বন্দীদের অপরাধ ছাড়া কোন প্রকার শাস্তি প্রদান করা হয় না।
গ. কারা বিধি অনুসারে প্রাপ্যতা অনুযায়ী প্রত্যেক বন্দীর খাবার ও আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়।

 

৮. চিকিৎসা ব্যবস্থাঃ

 

ক. প্রত্যেক কারাগারে হাসপাতাল বিদ্যমান রয়েছে। অসুস্থ বন্দীদেরকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও তথ্য প্রদান করা হয়। অসুস্থ বন্দীদের চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাগারের বাহিরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা হয়।
খ. কারাভ্যন্তরে মাদকসেবী বন্দীদের সাধারণ বন্দীদের থেকে আলাদা করে পৃথক আবাসনের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

 

৯. প্রশিক্ষণঃ

 

ক. কারাগারে আটক বন্দীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিরুপন করতঃ তাদের আগ্রহ অনুসারে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।
খ. কারাগারে আটক সাজা প্রাপ্ত বন্দীদের বিভিন্ন ট্রেডে নিয়োজিত করে যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ প্রদান করতঃ দক্ষ ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে তোলা হয় যাতে করে বন্দী সাজা ভোগের পর মুক্ত জীবনে গিয়ে নানারকম পেশায় নিজেকে  নিয়োজিত করতে পারে।

 

১০. বন্দীদের কল্যাণমূলক কার্যক্রমঃ

 

ক. কারাগারে আটক নিরক্ষর বন্দীদেরকে প্রাথমিক শিক্ষা প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখা হয়েছে। প্রত্যেক নিরক্ষর বন্দীকে বাধ্যতামূলকভাবে এই শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে, যাতে করে কারাগার থেকে মুক্তির পর সামাজিক জীবনে ফিরে সুস্থ ও স্বভাবিক জীবন যাপন করতে পারে।
খ. মরণব্যাধি HIV/AIDS এর ভয়াবহতা সম্পর্কে বন্দীদের সজাগ করা হয় এবং মরণব্যাধি রোধকল্পে নানা রকম পন্থা সম্পর্কে সচেতন করা হয়।
গ. কারাগারে আটক বন্দীদের স্ব-স্ব ধর্ম প্রতিপালনের স্বার্থে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগসহ প্রতিপালনের জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা রহেছে।
ঘ. প্রতিনিয়ত বন্দীদের শৃংখলা বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও নির্দেশনা  প্রদান করা হয়।
ঙ. বন্দীদের দরবার ব্যবস্থা নিশ্চিত এবং দরবারের সমস্যাগুলো মনোযোগ সহকারে শ্রবণ করা হয় এবং সমস্যাগুলোর সমাধানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।
চ. নির্ধারিত তারিখে বন্দীদের হাজিরার নিমিত্তে কোর্টে প্রেরণ নিশ্চিত করা হয়।
ছ. বন্দীদের চিত্তবিনোদনের জন্য কারাভ্যন্তরে টিভি, রেডিও, ক্যারাম, লুডু, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন ইত্যাদির ব্যবস্থা রয়েছে।
জ. সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে দেখা সাক্ষাতের সুবিধার্থে নিজ জেলায় বা নিকটস্থ কারাগারে বদলী নিশ্চিত করা হয়।
ঝ.বন্দীদের চারিত্রিক সংশোধনের জন্য মোর্টিভেশনাল ক্লাস চালু রয়েছে এবং নানাবিধ প্রেষণামূলক যেমন, টিভি, রেডিও, ফ্রিজ, চার্জার লাইট মেরামত ও গাবাদি পশু পালন, মৎস্য চাষ ইত্যাদি বিষয়ে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে।
ঞ. কারাগারে বিভিন্ন প্রকার বৃত্তিমূলক ও কারিগরি প্রশিক্ষণ  কাজ চালু রয়েছে।
ট. প্রত্যেক কারাগারে বন্দীদের জন্য ক্যান্টিন ব্যবস্থা রয়েছে। যেখানে সাশ্রয়ী মূল্যে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র মজুদ রাখা হয়। বন্দীরা চাহিদা অনুযায়ী ক্যান্টিন হতে উক্ত মালামাল ক্রয় করতে পারেন।

 

বিঃদ্রঃ উপরে উল্লেখিত সুযোগ সুবিধা প্রাপ্তিতে কোন অসুবিধা বা হয়রানির স্বীকার হলে নিম্নোক্ত কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাতের মাধ্যমে অথবা টেলিফোন নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

 

জেল সুপার

টেলিফোনঃ ০৭৭১-৬১০৮৫

জেলার

টেলিফোনঃ ০৭৭১-৬৬৮৭৭

কী সেবা কীভাবে পাবেন

 

নাটোর জেলা কারাগারে প্রদেয় বন্দী সেবা সমুহ

 

 

১। খাদ্য সরবরাহ :    কারাগারে অবস্থানরত সকল বন্দীকে প্রতিদিন ৩ বেলা নির্ধারিত পরিমাণ খাদ্য সরবরাহ করা হয়ে থাকে ।

 

২। চিকিৎসা সেবা:      কারাগারে অবস্থানরত অসুস্থ্য বন্দীদের কারা হাসপাতালের তত্ত্বাবধানে  বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ সরবরাহ করা হয় । প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী অসুস্থ্য   বন্দীদের মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সমূহে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে । হাসপাতালে   ভর্তিরত বন্দিদের চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী  পথ্য সরবরাহ করা হয় । 

 

৩। শিক্ষা সেবা :       অবস্থানরত নিরক্ষর বন্দীদের জন্য স্বাক্ষরতা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এ ছাড়া গণ শিক্ষা , ধর্মীয় শিক্ষা, এবং নৈতিক শিক্ষা প্রদান করা হয়ে থাকে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এর সমযোগীতায় কারাগারে এই সেবা কর্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

 

৪। বন্দী দেখা সাক্ষাত :   প্রতি সপ্তাহে ০২ বার বন্দীরা তাদের আত্নীয় স্বজন এবং আইনজীবির আবেদনের প্রেক্ষিতে দেখা করার সুযোগ পেয়ে থাকে। এছাড়া বিশেষ প্রয়োজনে জেল সুপারের অনুমতি স্বাপেক্ষে নির্ধারিত দিনের পূর্বে বন্দীরা দেখা করার সুযোগ পেয়ে থাকে।

 

৫। আইনি সহায়তা :   কারাগারে আটক আর্থিক ভাবে অসচ্ছল এবং অসহায় বন্দীদের  আইনি সেবা প্রদানের লক্ষ্যে বিনামূল্যে সরকারী উকিল প্রাপ্তির আবেদন পত্র জেলা লিগ্যাল কমিটি বরাবরে প্রেরন করা হয়ে থাকে। চলতি বছরে ৩১ আগস্ট/১৩ পর্যন্ত মোট ৬২ জন বন্দীকে এই সেবা প্রদান করা হয়েছে। এ ছাড়া কারা কর্তৃপক্ষ বন্দীর আদালত কর্তৃক প্রদত্ত্ সাজার বিপরিতে আপীল করতে চাইলে বিনা খরচে জেল আপীলের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে।

 

৬। লাইব্রেরী সেবা :  কারাভ্যন্তরে বন্দীদের জন্য একটি সমৃদ্ধ লাইব্রেরী আছে। যেখানে কবিতা, গল্প, ঊপন্যাশ, প্রবন্ধ এবং ধর্মীয় পুস্তক রয়েছে। আগ্রহী বন্দীগন বিনামূল্যে কারা লাইব্রেরী থেকে বই সংগ্রহ করতে পারে।

 

৭। প্রশিক্ষণ সেবা :  কারা মুক্তির পর বন্দীদের পুনর্বাসনের লক্ষ্যে তাদের বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়ে থাকে। নাটোর কারাগারে বর্তমানে সেলাই, কৃষিকাজ, রন্ধন, নরসুন্দর, ব্যানার রাইটিং, আর্ট এবং যন্ত্রাংশ মেরামত কাজে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়ে থাকে। এছাড়া বন্দীদের মোটিভেশনের লক্ষ্যে এইচ আইভি এবং এইডস বিষয়ে সচেতনতা মুলক কার্যক্রম বর্তমানে চালু আছে।

 

৯। মাদক সেবনে নিরুৎসাহিত করাঃ   বন্দীদের মাদকের কুফল সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষ্যে শপথ পাঠ,প্রার্থনা বা ইবাদতের ব্যবস্থা, মাদকের কুফল সম্পর্কে আলোচনা, পোষ্টার প্রদর্শন ইত্যাদি ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে ।

 

১০। বিনোদন সেবাঃ   বন্দীদের  মানসিকভাবে  উজ্জিবিত রাখতে  নিয়মিতভাবে  খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে । এ ছাড়াও বিশেষ দিবসসমূহে উন্নত মানের খাবার সরবরাহ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, খেলাধুলা ও পুরষ্কার বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে । বন্দিদের প্রতিটি ব্যারাকে বিনোদনের জন্য  টিভি দেখা এবং ক্যারম, লুডু ও দাবা খেলার সুযোগ রয়েছে । এছাড়াও বন্দীরা ভলিবল ও ব্যাডমিন্টন  খেলার  সুযোগ পেয়েথাকে এবং বন্দীদের  সমন্বিত বিনোদনের জন্য  একটি বন্দী সাংস্কৃতিক দল রয়েছে যরা সপ্তাহে ২ দিন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে।

 

১১।  অন্যান্য :      বন্দিদের সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে সাপ্তাহিক নিয়মিত পরিদর্শনের পাশাপাশি সকল কয়েদি ও হাজতি বন্দিদের নিয়ে প্রতি মাসে ০১ বার  দরবার আয়োজন করা হয় । সেখানে বন্দিদের অভিযোগ শোনা হয় এবং বিধি অনুযায়ী সমাধানের উদ্দ্যোগ নেয়া হয় ।

        

তথ্য অধিকার

প্রক্রিয়া সরণী

বিজ্ঞপ্তি

ডাউনলোড